আল্লাহ, নবী-রাসুল, ফেরেশতা, মানুষ এবং সারা জাহান এবং অন্যান্য গুরুত্বপুর্ন বিষয়ে আলোচনা এবং গবেষনা।


জননেতা না জনসেবক?


আমি ওনাদের জননেতা না বলে জনপ্রতিনিধি বলতে চাই। কয়েকজন জনপ্রতিনিধির কথা আমার খুব ভাল লেগেছে তাই তাদের কিছু গুরুত্বপুর্ন কথার উদ্ধৃতি তুলে ধরছিঃ ১। তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন্, ‘মন্ত্রী থেকে প্রধানমন্ত্রী সবাই জনগণের নির্বাচিত কর্মচারী। আমরা যারা এখানে বসে আছি তারা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী।’

২। ‘মাননীয় বলবেন না, আমি সাধারণ কর্মী’। সম্বোধনের সময় নামের আগে মাননীয় না বলতে অনুরোধ করেছেন চট্টগ্রাম-৯ আসনে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

৩। মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন, সমালোচনা কিংবা বিদ্রুপকে আমি ভয় করি না। তিনি বলেন, রাজনীতি করলে সমালোচনা সহ্য করতে হয়। এটাই রাজনীতি করার মূল্য। তিনি বলেন, একজন রাজনীতিককে সমালোচনা মেনে নিতে হবে।

মাহাথির মোহাম্মদ

ওনাদের ওসব সুন্দর সুন্দর কথা বলার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

সব জননেতাদের জনসেবক হওয়া উচিত। জনগনের ভোটে নির্বাচিত হয়ে নিরলশভাবে জনগনের জন্য কাজ করাই জনপ্রতিনিধিদের কাজ হওয়া উচিত তাহলে দেখবেন কেঊ আর দীর্ঘসময় ক্ষমতায় থাকার ধান্দা করবে না। কারন ক্ষমতায় থাকা মানেই কাজের অতি চাপ এবং দ্বায়িত্ব কিন্ত চোটপাট আর দাপট দেখাবার কিছুই নাই! অনেক সময় অভিযোগ পাওয়া যায় একবার নির্বাচিত হওয়ার পর জনগন আর তাকে খুজে পায় না!

মাননীয়, মহামান্য হয়ে চতুর্দিকে পুলিশ, আর্মি পরিবেশটিত থাকেন, জনগন কাছেই ভিড়তে পারে না! হ্যাঁ মানছি, আপনার জীবন মুল্যবান, কিন্তু জনগনের জীবনও তো মুল্যবান! এই পৃথিবীর এককভাবে সবচেয়ে ক্ষমতাধর যে ব্যক্তি, সেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট কিন্তু মাননীয়, মহামান্য বনে যান না! যদিও তার ব্যক্তিগত নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকে, সাধারন মানুষ আর তার মধ্যে ওত শক্ত দেওয়াল থাকে না। তাই আমাদের আশা, আমাদের জনপ্রতিনিধিরা জননেতা না হয়ে সত্যিকার ভাবেই এক একজন ভাল এবং সৎ জনসেবক হবেন। অনেক ধন্যবাদ।

সুত্রঃ

‘মন্ত্রী থেকে প্রধানমন্ত্রী জনগণের কর্মচারী’

‘মাননীয় বলবেন না, আমি সাধারণ কর্মী’

রাজনীতিতে সমালোচনা সহ্য করতে হয়: মাহাথির মোহাম্মদ


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।